পৃষ্ঠাসমূহ / Pages

মোবাইলহীন যুগের একটি গল্প

আজ মোবাইল ফোন ছাড়া এক মুহুর্ত চলে না। এটা আমাদের জীবনের একটা অঙ্গ হয়ে গেছে। মোবাইলহীন জীবনটা এখন ভাবাই যায় না। কিন্তু এটাওতো  সত্য মোবাইলহীন জীবনও আমরা দেখেছি। এখন অনেক ঘটনা মনে পড়ে, মনে হয়, সেইসময় যদি মোবাইল ফোন থাকত তাহলে ঘটনাটা অন্যরকম হত। তখন মোবাইলহীন জীবনে অনেক মজার ঘটনাও ঘটত। সে রকমই একটি ঘটনা আমার এক মহিলা সহকর্মী বলেছিল। তার সেই গল্পটাই আজ বলব।

আমার সহকর্মী তখন সদ্য চাকুরীতে যোগ দিয়েছে এবং  সদ্য বিবাহিতা। কিন্তু Higher Degree'র জন্য তখনও সে পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছে। সে কলকাতার কাছের এক মফঃস্বল অঞ্চল থেকে অফিস করতো। একদিন অফিসের পর বইপাড়ায় (কলেজ ষ্ট্রীট ) গিয়ে কিছু বই কিনতে যাবার জন্য তার স্বামীকে শিয়ালদহ ষ্টেশনে আসতে বলেছিলো। সেখান থেকে দুজনে একসঙ্গে কলেজ ষ্ট্রীটে গিয়ে বই কিনে বাড়ী ফিরবে- এই  ছিল তাদের সেদিনের প্লান।

মহিলা অফিস থেকে তাড়াতাড়ি বেরিয়ে সময়ের আগেই শিয়ালদহ ষ্টেশনে পৌঁছে যায়, এবং তার স্বামীর জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। শিয়ালদাহ ষ্টেশনে সেরকম বসার কোন ব্যাবস্থা নেই । কিন্তু মোটা মোটা থামের চারপাশে সিমেন্টের বাঁধানো বসার ব্যাবস্থা  আছে। প্রয়োজনে সবাই সেগুলোকেই বসার ব্যাবস্থা হিসাবে ব্যাবহার করে।  আমার সহকর্মীনীও সময় আছে দেখে একটা থামের সিমেন্টের বেঞ্চে বসে অপেক্ষা করতে লাগলো। 

এদিকে মহিলার স্বামীও নির্ধারিত সময়ের কিছু আগেই শিয়ালদহ পৌঁছে, তার wifeকে দেখতে না পেয়ে, ভাবলো অফিস থেকে দেরীতে বেরিয়েছে হয়ত, তাই আসতে দেরী হচ্ছে। তাছাড়া বাস পাওয়ারও ঝামেলা থাকতে পারে, এই সব ভেবে অপেক্ষা করার জন্য সেও একটা থামের বেঞ্চে বসল। মোবাইলহীন যুগে এছাড়া করারই বা কি ছিল ! এখন হলে এর মধ্যে কতবার ফোন করা হয়ে যেত। তারা দুজনেই অপেক্ষা করতে লাগলো। সময় তাঁর মত কেটে গেল, কিন্তু তারা জানল না যে তারা একই থামের উল্টোদিকে বসে একজন আরেকজনের জন্য অপেক্ষা করছে।  
 যখন দুজন দুজনকে আবিষ্কার করলো, অনেকটাই সময় কেটে গেছে, এত কাছে থেকেও - কেও কাওকে দেখতে না পাওয়ার জন্য দুজনেই অবাক। কেউ কাওকে  দোষারোপ করতে পারল না কিন্তু নিজেদের বোকামির জন্য দুজনেই বেশ কিছুক্ষণ হাসল।

সেদিন কলেজ ষ্ট্রীট যাওয়া মাথায় উঠলো। কিছু টুক টাক খেয়ে ফিরতি ট্রেনে উঠে পড়লো। তখন অফিস ভীড় শুরু হয়ে গেছে। দুজনে একসঙ্গে বাড়ী ফিরছে এটাই ছিল সেদিনের বড় পাওনা। শিয়ালদহ ষ্টেশনের এই মজার স্মৃতিটুকু বলতে বলতে সেদিনের সেই বোকামীর জন্য আমার মহিলা সহকর্মী হাসতে লাগলো।  

আমরা মোবাইলহীন যুগে থখন কত অসহায় ছিলাম। কত সময় নষ্ট হত। উপরের ঘটনা থেকে তা আমরা পরিষ্কার বুঝতে পারছি। সেদিন তাদের কাছে মোবাইল ফোন থাকলে এ ঘটনা নিশ্চয় ঘটত না।

1 টি মন্তব্য: