পৃষ্ঠাসমূহ / Pages

মুর্শিদাবাদ ঘুরে এলাম

ইমামবাড়া। এটা বোধহয় এশিয়ার বৃহত্তম ইমামবাড়া।
হাজারদুয়ারী প্রাসাদ মিউজিয়াম
কাটরা মসজিদ। এখানে মুর্শিদ কুলি খাঁ, যাঁর নামে এই শহরের মুর্শিদাবাদ নাম হয়, সমাধিস্ত। এই শহরের ইতিহাস কমবেশী সকলের জানা। তাই ইতিহাস লিখতে চাইনা এখানে।

ভাগীরথীর তীরে সুর্যাস্ত।
কাঠ গোলা প্রাসাদ। এখানেই সত্যজিত রায় তাঁর "জলসাঘর"  ও উত্তম তনুজা অভীনীত "এন্টনি ফিরিঙ্গির" কিছু দৃশ্যের শুটিং হয়েছিল।

সাপ্তাহান্তিক ভ্রমনের জন্য মুর্শিদাবাদ যাওয়া খুবই সহজ। হাজারদুয়ারি বা ভাগিরথী এক্সপ্রেসে উঠে বসলেই ৫ ঘন্টায় মুর্শিদাবাদ পৌঁছে যাওয়া যায়। সেখানে পৌঁছে আমার মত অনেকেই হোটেল মঞ্জুষায় ওঠে। কিন্তু ওটা একটা Substandard হোটেল। গরম জল, টিভি, ইন্টারকম নেই। রেস্তোঁরা আছে কিন্তু খাওয়ার অযোগ্য। মজার ব্যাপার হোটেলে কোণো RECEPTION  বা Full TIme Manager নেই।  হাজারদুয়ারি প্যালেসের কাছে এটাই একটা প্লাস পয়েন্ট। Room Rates are exorbitantly high. আমি  Internet search করে টেলেফোনে বুক করেছিলাম। এক রাত কোনোরকমে কাটিয়ে পরেরদিন সকালেChange করতে বাধ্য হয়েছিলাম।  HOTEL SAGNIK সব ব্যাবস্থা করে । ঘোরার ব্যাবস্থা ওরাই করে দেয়। SAGNIK একটা আধুনিক হোটেল। টিভি, ইন্টারকম, রেস্তোঁরা আছে এবং Rates are same as Manjusha. So be careful about it. সব ট্যুর অপারেটর ও হোটেল বুকিং এজেন্টরা এই হোটেলে বুক করে দেয়। হাজারদুয়ারির কাছে কিন্তু সমস্ত কিছু থেকে বিছিন্ন। আমার মত ভোগান্তি যেন না হয় তাই এই সাবধানবানী।

২টি মন্তব্য:

  1. Hotel Sagnik Hazar Duari Palace theke koto dure ?

    regards,
    sumanta
    http://www.sumanta.net/photos

    উত্তরমুছুন
  2. হাজারদুয়ারী থেকে দূর আছে। টাঙ্গা বা অটো করে যেতে হবে। সব জায়গা দেখতে হলে টাঙ্গা বা Auto করতেই হয়।
    Baire thakar jonyo uttar dite deri holo.
    আশা করি ভাল ভাবে ঘুরে এসেছেন।

    উত্তরমুছুন