পৃষ্ঠাসমূহ / Pages

চৌরিঙ্গী

     Shankar (Writer)
শঙ্করের চৌরিঙ্গী উপন্যাস। অবশেষে আন্তর্র্জাতিক সন্মানে সন্মানিত হল। পুরস্কার এল বিদেশ থেকে। বাংলা সংস্করনের জন্য অবশ্যই না। ২০০৯ সালে "চৌরিঙ্গী" ইংরাজিতে অনুদীত হয় এবং বিদেশে পাঠকদের মন জয় করে ফেলে। বাঙ্গলা  সংস্করনের ভাগ্যে কোনো পুরস্কার জ়োটে নি, একটা ছাড়া। সেটা  "ভাল বই বাঁধানোর" (Best Book Binding) 'জন্য  একটা পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল। খুবই হাস্যকর ব্যাপার। এছাড়া আর কিছু জোটে নি, সমালোচনা ছাড়া। পাঠকদের মন জয় করলেও বইটি সমালোচকদের মন জয় করতে সক্ষম হয় নি। ষাটের দশকের শেষদিকে (১৯৬৮) এই উপন্যাস নিয়ে "চৌরিঙ্গী"  FILM  তৈরী হয় এবং দর্শকদের মন জয় করে নেয়। মুখ্য ভুমিকায় ছিলেন উত্তম, সুপ্রিয়া, বিশ্বজীত, অঞ্জনা ও শুভেন্দু। ১৯৫০ সালের কলকাতার GRAND HOTEL'র পটভুমিকায় শঙ্কর গল্পের চরিত্রগুলো নিপুনভাবে এঁকেছেন। শঙ্কেরের ভুমিকায় শুভেন্দু হোটেলে চাকরী করার সময় তার Senior Manager, Staff ও হোটেলে আগত অতিথিদের জীবনের নানা ঘটনার সাক্ষী ছিলেন। তাদের জীবনের প্রেম ভালবাসা, সুখ-দুঃক্ষ, মান-অভিমান, বিরহ-মিলনের মুহুর্তগুলো পাঠকদের সামনে তুলে ধরেছেন। জ়ীবনের এইসব গল্পগুলি সকলের খুবই চেনা মনে হয়।  এগুলো সব দেশের সব মানুষের জীবনের ছিরন্তন গল্প। সবার ক্ষেত্রেই এগুলো সত্য। তাইতো ইংরেজ পাঠকদের মন জয় করা খুব কঠীন হয় নি। পুরস্কার পাওয়ার জন্য লেখককে আমার আন্তরিক অভিনন্দন জানাই।

উত্তম অভিনীত স্যাটা বোসকে কার না মনে আছে! কে ভুলবে তখনকার তন্বী তরুনী অঞ্জনাকে । সিনেমার গানগুলো আমাদের কাছে খুবই NOSTALGIC. "এই কথাটি মনে রেখো ,তোমাদের হাসি খেলায় , আমি যে গান গেয়েছিলাম" আজও এই গানটি শুনলে  এই দৃশ্যটাই চোখের সামনে ভেসে ওঠে। গানটি গেয়েছেন প্রতিমা বন্দ্যোপাধ্যায়। গানটি শোনা যাক ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন